সোনায় কখনও কেন মরিচা ধরে না!

সোনায় কখনও কেন মরিচা ধরে না!

সোনায় কখনও কেন মরিচা ধরে না!

সোনা একটি ধাতব হলুদ বর্ণের ধাতু। বহু প্রাচীনকাল থেকেই মানুষ এই ধাতুর সাথে পরিচিত ছিল। অপরিবর্তনীয় বৈশিষ্ট্য, চকচকে বর্ণ, বিনিময়ের সহজ মাধ্যম, কাঠামোর স্থায়ীত্বের কারণে এটি অতি মূল্যবান ধাতু হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আসছে সেই প্রাচীনকাল থেকেই। সোনা দিয়ে বিভিন্ন ধরণের অলঙ্কার তৈরির প্রথা এখনও সমানভাবে বিরাজমান রয়েছে।

ধারণা করা হয়, সোনা মানুষের আবিষ্কৃত প্রাচীনতম মৌল। এমনকি নব প্রস্তর যুগেও সোনার তৈরি দ্রব্যাদি ব্যবহৃত হতো। সে যুগের খননকৃত অনেক নিদর্শনে পাথরের জিনিসের সাথে এগুলোর অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। জার্মানির বিখ্যাত সমাজতত্ত্ববিদ কার্ল মার্ক্সও সোনাকে মানুষের আবিষ্কৃত প্রথম ধাতু হিসেবে চিহ্নিত করেছেন।

কিন্তু কখনও ভেবেছেন? সোনায় কেন মরিচা পড়ে না? যেমন- লোহা একটি ধাতু। লোহার মত সোনাও একটি ধাতু। সোনা একটি নিষ্ক্রিয় ধাতু। বাতাসে যেসব উপাদান থাকে তাদের সঙ্গে এ ধাতু কোনো প্রকার যৌগিক পদার্থ সৃষ্টি করতে পারে না। লোহা বাতাসের সংস্পর্শে ফেরাস বা ফেরিক অক্সাইড গঠন করে। সোনা বাতাসের সংস্পর্শে কোনোরকম বিক্রিয়া ঘটায় না। বাতাসের জলীয় বাষ্প ও অক্সিজেন তার কিছুই করতে পারে না। বাতাসে কোনো রাসায়নিক পদার্থেরই সোনার সংঙ্গে কোনো বিক্রিয়া হয় না। এ কারণে সোনায় কখনো মরিচা ধরে না।

24 Ghanta Khobor News Desk

Related Posts

leave a comment

Create Account



Log In Your Account



error: Content is protected !!